নবযৌবন আষাঢ় মাসে

নবযৌবন আষাঢ় মাসে
প্রেমনদী নিয়রে ভাসে
দূর বিদেশে রইল শ্যাম
কালিয়া রে।।

প্রাণসখি রে-
বৈশাখে সাধের নালিতা
বন্ধু বিনে লাগে তিতা
বুকে ব্যথা বাড়ে রইয়া
রইয়া জ্যৈষ্ঠ মাসে পাকে আম
কাঁঠাল আর মিষ্টি জাম
প্রাণসখি রে
কার মুখেতে দিব রাই তুলিয়া রে।।

প্রাণসখি রে-
আষাঢ় মাসে নতুন জোয়ার
ডুবায় গাঙের দুটি পার
খেলব সাঁতার কারে সঙ্গে লইয়া
শ্রাবণ মাসে দুঃখ ভারী
আসে যায় কত নাইওরি
প্রাণসখি রে
আমি কান্দি আশার পথে চাইয়া।।

প্রাণসখি রে-
ভাদ্র মাসে যৌবন জ্বালা
কেমনে সহিব অবলা
রাখি দুঃখ বুকে চাপা দিয়া
আশ্বিনে চন্দ্রিমা সনে
তারা হাসে নীল গগনে
প্রাণসখি রে
আমি রইলাম বন্ধুহারা হইয়া।।

প্রাণসখি রে-
কার্তিক মাসে পড়ে ভাটা
গেল যৌবন রইল খুটা
রূপ-লাবণ্যে গেল ছাই পড়িয়া
অগ্রহায়ণে মনের সুখে
হাসি ফোটে সবার মুখে
প্রাণসখি রে
আমি কান্দি শূন্য শয্যা লইয়া।।

প্রাণসখি রে-
পৌষ মাসে শীতের জ্বালা
গাছেতে পাকে কমলা
মদনজ্বালা জ্বলে রইয়া
রইয়ামাঘ মাসিয়া দারুণ শীতে
বন্ধু পাইলে আঁধার রাতে
প্রাণসখি রে
বুকের সাথে রাখিতাম জড়াইয়া।।

প্রাণসখি রে-
আসিল বসন্ত ফাল্গুন
বুকে জ্বালা বাড়ে দ্বিগুণ
কোকিলার কুহু ডাক শুনিয়া
সনের শেষে চৈত্র মাসে
দুর্বিন শাহর বন্ধু বিদেশে
প্রাণসখি রে
শেষের খবর কারে যাব কইয়া।।

(বারোমাসি)