রাত্রির অগাধ বনে

রাত্রির অগাধ বনে ঘােরে একা আদম-সুরাত
তীব্রতর দৃষ্টি মেলে তাকায় পৃথিবী:
জাগাে জনতার আত্মা। ওঠো, কথা কও,
কতোকাল আর তুমি ঘুমাবে নিসাড়
নিস্পন্দ, আকাশ ছেয়ে চলেছে যখন
নতুন জ্যোতিষ্ক-সৃষ্টি; তখনাে তােমার
স্থবির নিশ্চল্‌ বুকে নাই কোনাে প্রাণদ-ইংগিত
নাই অগ্নিকণা: নাই ধুমকেতু বেগ!
জনতার অপমৃত্যু বুকে নিয়ে পৃথিবী ঘুমায়,
শােষকের রক্ত জমে সমুদ্রের গভীর অতলে
অগ্নিকণা সৃষ্টি হয়-নাকো!

কতকাল ঘুমাবে একাকী?

তােমার পাঞ্জার সাথে জালিমের শাণিত পাঞ্জার
হবে নাকি সুকঠিন প্রাণান্ত-প্রয়াস!
হবে নাকি বােপড়া জীবন-মৃত্যুর।
হবে নাকি ব্যর্থতার চাপাকান্না
জেহাদের ঝড় সাইমুম:
জাগাে জনতার আত্মা! ওঠো, কথা কও!

পৃথিবী বিশাদ আর বিচিত্র বিশালতর অস্তিত্ব তােমার—
আকাশের দীপ্ত বহ্নি তােমার মুঠিতে
তােমার চোখের কোণে সমুদ্রের রহস্য অসীম
তােমার বুকের মাঝে সুপ্ত দাবানল

পৃথিবীকে কখন জ্বালাবে?
যে-পৃথিবী জালিমের কঠিন মুঠিতে
সে-পৃথিবী জ্বালাবে কখন?
যে-ঘুম মৃত্যুর মত গতিহীন মাদক অশেষ
সেই ঘুম কখন জ্বালাবে?
আজ তুমি চিনে নাও আপন পৃথ্বীরে
গড়ে তােলাে পৃথিবী আপন,
নিজের আত্মাকে আজ চিনে নাও তুমি
গড়ে নাও পৃথিবী নিজের
জাগাে জনতার আত্মা! ওঠো, কথা কও!