স্বপ্নলােকে লুঠতরাজ

প্রত্যহ হচ্ছে চুরি স্বপ্নলােকে, জানালা কপাট এমনকি দেয়ালের
ছিদ্র দিয়ে ঢেকে চোর, অদৃশ্য নৈঃশব্দকুশল,
খােয়া যায় টুকিটাকি জ্যোৎস্না আলাে পিলসুজ কাকই কলম চটিজুতাে
সিঁধকাঠি দিয়ে ঢেকে সন্ধ্যারাতে ছ্যাচড়া চোর
কান ছিড়ে নিয়ে যায় সােনার কানেট।
যখন ঘুমিয়ে থাকি স্বপ্নহীন বালিশবর্জিত তরুলতা ঝ’রে যায়
বাঙলার লােকালয় থেকে
যখন নিদ্রিত আমি বিপন্ন আমার স্বপ্নলােক।

স্বপ্নলােকে হাস পায় সম্পদসম্ভার
সেইসব গাছপালা
চোখ হাত হারায় নিজস্ব শােভা

বাস্তবতা থেকে আর কতাে ধার নেয়া যায়
প্রতিটি নিদ্রার পদ্যে স্বপ্নের বালাদে!
ঘন ঘন বিদ্যৎ বন্ধ হয় স্বপ্নলােকে
স্নানাগার পড়ে থাকে জলহীন মরুভূমি
তবু হৈহৈ ঢােকে চোর কুটিল দুঃসহ
দ্রুত ট্রাকে নিয়ে যায় সব সৌধ কালাে চোখ নদী ও নগর।

দিন দিন বিবর্ণ হয়ে ওঠে মানসসুন্দরীর লিপস্টিক
নেলপালিশ
কেশের বিন্যাস
দিকে দিকে রাষ্ট্র হয় ষড়যন্ত্র: শত্রুর উল্লাস।