আর্শিতে তোর নিজের রূপই দেখিস

আর্শিতে তোর নিজের রূপই দেখিস চেয়ে’ চেয়ে’
আমায় চেয়ে দেখিস না তাই রূপ-গরবী মেয়ে।
ওলো রূপ-গরবী মেয়ে॥

নাইতে গিয়ে নদীর জলে
দেরি করিস নানান ছলে,
ওরে ভাবিস তোরে দেখতে কখন
আস্বে জোয়ার ধেয়ে
ওলো রূপ-গরবী মেয়ে॥

চাদেঁর সাথে মিলিয়ে দেখিস্
চাঁদপানা মুখ তোর,
ভাবিস তুই আসল্ শশী
চাঁদ যেন চকোর
ওলো চাঁদ যেন চকোর।

বনের পথে আনমনে
দাঁড়িয়ে থাকিস অকারণে
ওরে ভাবিস্ তোরে দেখেই বুঝি
বিহগ ওঠে গেয়ে’।
ওলো রূপ-গরবী মেয়ে॥