বেদনার সিন্ধু-মন্থন শেষ হে ইন্দ্রানী

বেদনার সিন্ধু-মন্থন শেষ, হে ইন্দ্রানী।
জাগো, জাগো করে সুধা-পাত্রখানি॥

রোদন-সায়রে ধুয়ে পুষ্প-তনু—
এসো অশ্রুর বরষার ইন্দ্র-ধনু,
হের কুলে অনুরাগে জীবন-দেবতা জাগে
ধরিবে বলিয়া তব পদ্ম-পাণি॥

তব দুখ-রাত্রির তপস্যা শেষ—এলো শুভ দিন,
অতল তমসা-‘পারে প্রভাতের প্রায় জাগো অমলিন।

সুর-লক্ষ্মী গো তুমি অমরার—
এসো এসো পার হ’য়ে ব্যথার পাথার,
অশ্রুত অশ্রুর নীরবতা কর দূর
কূলে কূলে হাসির তরঙ্গ হানি’॥