পান্‌সে জোছ্‌নাতে কে চল গো

পান্‌সে জোছ্‌নাতে কে চল গো পানসি বেয়ে’।
ঢেউ-এর তালে তালে বাঁশিতে গজল গেয়ে’।।

মেঘের ফাঁকে ফোটে বাঁকা শশীর চিকন হাসি,
উজান বেয়ে চল তুমি কি তার চোখে চেয়ে।।

ও-পারে লুকায়ে আঁধার গভীর ঘন বন-ছায়,
আকাশে হেলান দিয়ে আলসে পাহাড় ঘুমায়।
ঘুমায়ে দূরে সে কোন গ্রাম বাসরে পল্লী-বধূর প্রায়
এ-পারে ধূ-ধূ বালুচর যেন নদীর আঁচল লুটায়।
ছাড়ি’ এ সুখ-বাস চলেছ কোথায় গো নেয়ে।।

নদীর দু’তীরে টানে বেতস-লতা উত্তরীয়,
চমকি ‘উঠি’ চখি ডাকে মুহু মুহু ‘কিও!’
চকোরী চাঁদে ভুলি’ চাহে তব মুখপানে,
কেঁদে পাপিয়া শুধায়, ‘পিউ কাঁহা, কাঁহা পিও।’
তুমি যাও আপন-বিভোল স্বপনে নয়ন ছেয়ে’।।