শ্মশান-কালীর নাম শুনে রে

শ্মশান-কালীর নাম শুনে রে ভয় কে পায়?
মা যে আমার শবের মাঝে শিব জাগায়॥

আনন্দেরই নন্দিনী সে,
অমৃত নীল-কণ্ঠ-বিষে,
চরণ শোভে অরুণ আলোর লাল জবায়॥

চার হাতে তার চার যুগেরই খঞ্জনী
নৃত্য-তালে নিত্য ওঠে রঞ্ঝনি।

অন্নদা মোর নিল তুলি
সাধ করে রে ভিক্ষা-ঝুলি,
পায় না ধ্যানে যোগীন্দ্র সেই যোগ-মায়ায়॥

[বারোয়া-দাদ্রা]