ভুলি কেমনে আজো যে মনে

ভুলি কেমনে আজো যে মনে
বেদনা-সনে রহিল আঁকা
আজ সজনী দিন রজনী
সে বিনে গনি সকলি ফাঁকা॥

আগে মন করলে চুরি
মর্মে শেষে হানলে ছুরি,
এত শঠতা এত যে ব্যথা
তবু যেন তা মধুতে মাখা॥

চকোরী দেখলে চাঁদে
দূর থেকে সই আজো কাঁদে,
আজো বাদলে ঝুলন ঝুলে
তেমনি জলে চলে বলাকা॥

বকুলের তলায় দোদুল
কাজলা মেয়ে কুড়োয় লো ফুল,
চলে নাগরী কাঁখে গাগরী
চরণ ভারি কোমর বাঁকা॥

তরুরা রিক্ত-পাতা
আসল লো তাই ফুল-বারতা,
ফুলেরা গলে ঝরেছে বলে
ভরেছে ফলে বিটোপি-শাখা॥

ডালে তোর হানলে আঘাত
দিস রে কবি ফুল-সওগাত,
ব্যথা-মুকুলে অলি না ছুঁলে
বনে কি দুলে ফুল-পতাকা॥

[পিলু-কাহার্বা-দাদ্রা]