চকোরের গান

সুধার ক্ষুধা কাহার প্রাণে—আয় গো!
চাঁদের আলো যায় যে ব’য়ে যায় গো!
শ্যামল মেঘের পদ্মপাতে
আয় গো ভেসে গভীর রাতে
মেঘের পিঠে কিরণ-ছটায় আয়!
আয় গো ভেসে আয় গো মধু বায় গো!

স্বপন সম আয় নীরবে আয় গো!
চিহ্ন পায়ের পড়বে না হাওয়ায় গো!
চাঁদের সভায় এটি তারা
ডাক্ছে কারে সঙ্গীহারা,—
দোসর হ’তে ডাকছে সে যে, হায়!
আয় গো ভেসে আয় গো পায়ে পায় গো!

দুনিয়াখানা দু’পায় ঠেলে আয় গো!
উধাও ধেয়ে উল্লাসে জ্যোৎস্নায় গো!
আয় আকাশে পক্ষ মেলে
আয় বাতাসে অঙ্গ ঢেলে,
মেঘের ভীড়ে আয় বিজলীর ভায়!
বজ্র-শিখার আয় গো নীড়ে আয় গো!

উধাও! উধাও ঝঞ্ঝা ঠেলে পায় গো!
আয় নীরবে নীরব সুষমায় গো!
আয় ধেয়ানী! আয় রে কবি
দুর্লভেরি আয় গো লোভী!
আনন্দের এই চন্দ্রেরি সভায়
স্বপন-খেয়ায় আয় জোছনার নায় গো!

ঝিনা মেঘের ঝিঁঝির পাতে আয় গো!
আকাশ সোঁতার ঝাঁঝির সাথে আয় গো!
আয় আকাশের আব্-রুয়াতে,—
আয় নিঝুমে নিঝুম রাতে,
নিশানাথের শুভ্র ছাতার ছায়,—
স্বর্গ-পরী যেথায় ধীরি গায় গো!

চাঁদের পাখী চকোর ডাকে আয় গো!
চন্দ্রলোকের চাঁদকে দেখা যায় গো!
চাঁদের দেশে চাঁদ যে ধরা—
দেখবি তারে আয় গো ত্বরা,
আয় গো চাঁদে—চিনতে বসুধায়,—
চাঁদের বড় চিনবি চাঁদে আয় গো।

কালো ধরার দেখবি আলো আয় গো!
সুধার ক্ষুধা আপনি মেটে যা’য় গো!
চোখের আলো থাক্তে চোখে
চিন্বি যদি আপন লোকে
আয় তফাতে আলোর দুনিয়ায়!
চকোর ডাকে মেঘের ফঁকে—
আয় গো!