শাহ কিবরিয়া কবর থেকে উঠে

তোমার কবর থেকে উঠে স্বদেশের মৃওিকায়
দাঁড়িয়ে প্রশান্ত কন্ঠস্বরে
সুস্পষ্ট সওয়াল করো এদেশের অনন্য সন্তান,——
“বলো,বলে দাও আজ কী ছিল আমার অপরাধ?
এখন স্বীকার করি গোধূলিবেলায়
আমি ঘোর অপরাধী!স্বদেশকে শর্তহীন এক
মজনুর মতো দিনরাএি শুধু ভালোবেসে যাওয়া
অপরাধ সেই অস্এবাবা ঘাতক এবং তার কর্তার নিকট।
“কখনও নিইনি হাতে পুস্তক,কলম,মানুষের হাত,
গোলাপ,সতেজ পদ্ম,পায়রা,চড়ুই ছাড়া অন্য
কিছু,তবু শরীর আমার তাজা রক্তে ভেসে গেছে ঘাতকের
হত্যাপ্রিয় অস্এাঘাতে।জানি না আমার অবসানে
স্বদেশের অস্তিত্বে কী ক্ষত সৃষ্টি হ’ল, আমি চাই
বাংলার মুখ যেন ভবিষ্যতে হীরের মতোই
জ্বলজ্বলে হয়ে ওঠে।”অকস্মাৎ কবরের মাথার দিকটি
জনশূন্যতায় পরিণত হয়।চতুর্দিক ঢেকে যায় কুয়াশায়।

২৩.০২.২০০৫