বেঁচে থাকা এর নাম

চৈত্রের মধ্যাহ্ন বেলা। পুড়ে পুড়ে খাক হয় মাটি ও মানুষ
গনগনে আগুনের চুল্লি উপুড় করেছে এক ভগবান
কাজকর্ম নেই কোনও, সাত আসমানে তার বিলাসী জীবন।

শ্রমের জীবন যায়, বিনিদ্র রজনী যায়, বেঁচে আছি তবু
আমাদের সাদা ভাতে তবুও অশুচি দেয় দাতাল শুয়াের
নিয়ত সংগ্রাম করে নীতি ও নিয়মগুলাে ভাঙতে গেলেই
হালুম হালুম বলে শ্রমিকের রক্ত খায় ভিনদেশি বাঘ
নিসর্গেও বান আসে, খরা ও মড়ক নামে, অভাবের দেশ—

সবল পেশির জোরে অবিরল পাঞ্জা লড়ে কাটাই জীবন
ভেতর বাহির জ্বলে, অহর্নিশি জ্বলে তবু আগুন আগুন
জীবনের শুরু থেকে পুড়ে পুড়ে খাক হয় মােহন হৃদয়—

বেঁচে থাকা এর নাম। এভাবে মানুষ বাঁচে তৃতীয় বিশ্বের।

(গ্রন্থঃ শিকড়ে বিপুল ক্ষুধা)