রম্য

প্রথম গালি

  • সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত
  • কবিতা, রম্য

বয়েস- আড়াই কি দুই মনটি নির্মল জুঁই, হালকা যেন হাওয়া মেয়ে সে মুখ-চাওয়া মায়ের কাছে কাছে ছায়ার মত আছে জানে না মা বিনা কিছুই৷ আর সে দিদি চেনে তার দিদি সে সাথী খেলিবার, দুটিতে পিঠোপিঠি তবুও খিটিমিটি হয় না বেশী...বিস্তারিত

মৌলিক গালি

  • সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত
  • কবিতা, রম্য

বকেছিল তার দিদি-মাষ্টার পড়া সে পারেনি ব'লে, অক্ষর-পরিচয়ের ছাত্রী। অভিমানে তাই ফোলে। ভারি গম্ভীর হ'য়ে ব'সে আছে মুখখানি ভার করে, খেলুনিরা তার চোরা-চোখে চেয়ে দূরে দূরে সব ঘরে। আমি অতশত কিছুই জানি নে প্রতি দিনকার মত আদর করিতে কাছে গেনু,...বিস্তারিত

বানর

  • সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত
  • কবিতা, রম্য

একটা বানর বসেছিল সরল গাছের শাথে, আমি ব'সে ভাবছিলাম 'সে খায় কি? কোথায় থাকে?' অলসভাবে ভাব্তে এবং চাইতে চাইতে ক্রমে, কখন চক্ষু পড়্ল ঢুলে স্বপ্ন এল জমে। স্বপ্নে দেখি বছে বানর "ওহে পোষাকধারী! দেখ্ছ? আমার নেইক দর্জ্জি, নেই কোনো দিক্দারী,...বিস্তারিত

মাছিতত্ত্ব

  • রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
  • কবিতা, রম্য

মাছিবংশেতে এল অদ্ভুত জ্ঞানী সে আজন্ম ধ্যানী সে। সাধনের মন্ত্র তাহার ভন্ভন্-ভন্ভন্কার। সংসারে দুই পাখা নিয়ে দুই পক্ষ- দক্ষিণ-বাম আর ভক্ষ্য-অভক্ষ্য- কাঁপাতে কাঁপাতে পাখা সূক্ষ্ম অদৃশ্য দ্বৈতবিহীন হয় বিশ্ব। সুগন্ধ পচা-গন্ধের ভালো মন্দের ঘুচে যায় ভেদবোধ-বন্ধন; এক হয় পঙ্ক ও...বিস্তারিত

নূতন কাল

  • রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
  • কবিতা, রম্য

নন্দগোপাল বুক ফুলিয়ে এসে বললে আমায় হেসে,- "আমার সঙ্গে লড়াই ক'রে কখ্খনো কি পারো, বারে বারেই হারো।" আমি বললেম, "তাই বৈকি! মিথ্যে তোমার বড়াই, হোক দেখি তো লড়াই।" "আচ্ছা তবে দেখাই তোমায়" এই ব'লে সে যেমনি টানলে হাত দাদামশাই তখ্খনি...বিস্তারিত

বিড়াল

  • সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়
  • কবিতা, রম্য

হঠাৎ ঘুম ভেঙে উঠলো ধড়মড়িয়ে বিমলা ও কে গেল, কে পালালো, ও দস্যু,... মায়ের পাশে শুয়েছিল, হঠাৎ কেউ ছিঁড়লো বুকের জামা সারা শরীর জুড়ে রইলো নখের দাগ, বুকটা অমন গরম করে গেল ও কে গেল, কে পালালো, ও দস্যু– ও...বিস্তারিত

দাঁতের ব্যথায় ভুগছেন একজন দার্শনিক

  • সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়
  • কবিতা, রম্য

যেন তিনটে শীত ঋতু জমলো তাঁর দাঁতের গোড়ায় আহা উহু ছাড়া অন্য কথাগুলি অর্ধেক সোচ্চার পঞ্চাশোর্ধ্ব দার্শনিক লম্বমান করুণ শয্যায় শিয়রের জানলা খোলা, গৃহভৃত্যগুলি সব বেক্লিক নচ্ছার। সারাদিন লোক আসছে, সম্পাদক, অধ্যাপক, আমি, কিছু উচ্চিংড়ের মতো ছাত্র, বাল্যবন্ধু প্ৰবীণ কেরানী...বিস্তারিত

রুটিন

  • শামসুর রাহমান
  • কবিতা, রম্য

তাঁকে চেনে না এমন কেউ নেই এ শহরে তিনি থাকেন সবচেয়ে অভিজাত এলাকায় হাঁটেন মোজাইক করা মেঝেতে বসেন ময়ূর সিঙ্ঘাসনসুলভ পদিমোড়া চেয়ারে খ্যাতি তাঁর পায়ের কাছে কুকুরের মত কুঁই কুঁই শব্দে লেজ নাচায় হলফ করে বলতে পারি আমাদের আগামী বংশধররা...বিস্তারিত

ললাটে নক্ষত্র ছিল যার

  • শামসুর রাহমান
  • কবিতা, রম্য

বস্তিতেই আবির্ভাব, সংকীর্ণ বাথানে না হলেও পুরানো টিনের ঘরে সময়ের সাথে প্রথম সাক্ষাৎ তার। পড়শিরা কেউ কেউ খুশি হয়েছিল দেখে ফুটফুটে শিশুটিকে। ভিনদেশী প্রাজ্ঞজন আনেনি উপঢৌকন সেদিন, ওঠেনি দিগন্তে কোনো জ্বলজ্বলে তারা। ঘর ছেড়ে বারান্দায়, একদিন উঠোনে, পেয়ারা গাছের নিচে...বিস্তারিত

অমলের মতো

  • শামসুর রাহমান
  • কবিতা, রম্য

অমলের মতো জানালার ওপারের দৃশ্যাবলি অক্লেশে মুখস্থ রেখে আজও চাই আমার ঘুমিয়ে পড়ার আগেই সুধা ফুল নিয়ে আসুক এখানে, স্বপ্নস্থিত প্রচেষ্টায়। সে আসুক। আমার একান্ত স্বপ্ন আর আকাঙ্ক্ষার সমানবয়সী সুধা আর আমার দুঃখের সখী, সুখের নির্ভুল সহচরী। যে কোন উদ্যানে...বিস্তারিত