চিঠিপত্র

দু’টি কথা

  • কাজী নজরুল ইসলাম
  • চিঠিপত্র

দু'টি কথা 'গীতি-শতদলে'র সমস্ত গানগুলিই 'গ্রামোফোন' ও 'স্বদেশী মেগাফোন' কোম্পানির রেকর্ডে রেখা-বদ্ধ হইয়া গিয়াছে। আমার বহু গীত-শিল্পী বন্ধুর কল্যাণে 'রেডিও' প্রভৃতিতে গীত হওয়ায় এই গানগুলি ইতিমধ্যেই জনপ্রিয় হইয়া উঠিয়াছে। এই অবসরে তাহাঁদের সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করিতেছি। ডি. এম....বিস্তারিত

পত্র – ১

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

বেলেঘাটা ৩৪ হরমোহন ঘোষ লেন, কলিকাতা। শ্রীরুদ্রশরণম্- পরমহাস্যাস্পদ, অরুণ,[১] -আমার ওপর তোমার রাগ হওয়াটা খুব স্বাভাবিক, আর আমিও তোমার রাগকে সমর্থন করি। কারণ, আমার প্রতিবাদ করবার কোনো উপায় নেই, বিশেষত তোমার স্বপক্ষে আছে যখন বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ। কিন্তু চিঠি না-লেখার মতো...বিস্তারিত

পত্র – ২

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

বেলেঘাটা কলকাতা ৩৪, হরমোহন ঘোষ লেন -ফাল্গুনের একটি দিন। অরুণ, তোর অতি নিরীহ চিঠিখানা পেয়ে তোকে ক্ষমা করতেই হল, কিন্তু তোর অতিরিক্ত বিনয় আমাকে আনন্দ দিল এইজন্যে যে ক্ষমাটা তোর কাছ থেকে আমারই প্রাপ্য; কারণ তোর আগের 'ডাক-বাহিত' চিঠিটার জবাব...বিস্তারিত

পত্র – ৩

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

বেলেঘাটা, ২২শে চৈত্র, ১৩৪৮। সবুরে মেওয়াফল-দাতাসু, অরুণ, তোর কাছ থেকে চিঠির প্রত্যাশা করা আমার উচিত হয় নি, সে জন্যে ক্ষমা চাইছি। বিশেষত তোর যখন রয়েছে অজস্র অবসর- সেই সময়টা নিছক বাজে খরচ করতে বলা কি আমার উচিত? সুতরাং তোর কাছ...বিস্তারিত

পত্র – ৪

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

বেলেঘাটা-চৈত্র সংক্রান্তি ৪৮ কলকাতা। প্রভূতআনন্দদায়কেষু- অরুণ, তোর আশাতীত, আকস্মিক চিঠিতে আমি প্রথমটায় বেশ বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছিলাম আর আরও পুলকিত হয়েছিলাম আর একটুকরো কাগজে কয়েক টুকরো কথা পেয়ে। তারপর কৃতসংকল্প হলাম পত্রপাঠ চিঠির জবাব দিতে। আজ খুব বেশী বাজে কথা লিখব...বিস্তারিত

পত্র – ৫

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

বেলেঘাটা ১৭/৪/৪২ আশানুরূপেষু, অরুণ, আজ আবার চিঠি লিখতে ইচ্ছে হল তোকে। আজকের চিঠিতে আমার কথাই অবিশ্যি প্রধান অংশ গ্রহণ করবে। এ জন্যে ক্ষুব্ধ হবি না তো? কারণ আজকে আমি তোকে জানাব আমার সমস্যার কথা, আমার বিপ্লবী অন্তর্জগতের কথা। এই চিঠির...বিস্তারিত

পত্র – ৬

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

সৎসঙ্গশরণম্ শ্রীশ্রীশ্রী ১০৮ অর্ণব-স্বামী১১ গুরুজীমহারাজ সমীপেষু, শতশত সেলাম পূর্বক নিবেদন, পরমারাধ্য বাবাজী, আপনার আকস্মিক অধঃপতনে আমি বড়ই মর্মাহত হইলাম। ইতোমধ্যে শ্রবণ করিয়াছিলাম আপনি সন্ন্যাস অবলম্বন করিয়াছেন, তখন মানসপটে এই চিন্তাই সমুপস্থিত হইয়াছিল যে ইহা সাময়িক মত্ততা মাত্র; কিন্তু অধুনা উপলব্ধি...বিস্তারিত

পত্র – ৭

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

অরুণ, প্রথমে বিজয়ার সম্ভাষণ জানিয়ে রাখছি। এরপর একে একে প্রতি প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছি। প্রথমে কথা হচ্ছে জীবু ‘কবিতা’ শেষ পর্যন্ত দিল না- চেয়েছিলাম, তা সত্ত্বেও। তবে আগের ক’খানা রেখে দিয়েছি, সামনের সপ্তাহ থেকে সেগুলি ক্রমান্বয়ে পাঠাবার সঙ্কল্প রইল। আর পেনুর...বিস্তারিত

পত্র – ৮

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

অরুণ, তোর খবর শুনে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন হয়েছি। আমার পুরো একখানা চিঠি পরে পাঠাচ্ছি। যথাসত্বর তোদের সার্বজনীন কুশল প্রার্থনা করি।১৪বিস্তারিত

পত্র – ৯

  • সুকান্ত ভট্টাচার্য
  • চিঠিপত্র

২০, নারিকেলডাঙ্গা মেন রোড ২৮শে ডিসেম্বর : ১৯৪২ -বেলেঘাটা- সোমবার, বেলা ২টো। অরুণ! দৈবক্রমে এখনও বেঁচে আছি, তাই এতদিনকার নৈঃশব্দ্য ঘুচিয়ে একটা চিঠি পাঠাচ্ছি— প্রত্যাশিত বোমার মতোই তোর অভিমানের ‘সুরক্ষিত’ দুর্গ চুর্ণ করতে। বেঁচে থাকাটা সাধারণ দৃষ্টিতে অনৈসর্গিক নয়, তবুও...বিস্তারিত