জালিম ও মজলুম

সাপের কবলে পড়ে কাঁদে এক নির্জীব শিকার।
শেষ হ’য়ে এল তার
জীবন-পিপাসা।
মাথা ঠুকে মরে সে মাটিতে
সকল জীবন, স্বপ্ন, আলােকের মুক্ত অধিকার
বাতাসে-বাতাসে ভাসে ব্যর্থতার আহাজারি ব্যর্থ হাহাকার।
এখানে সভয়ে দেখি আদমের সন্তানেরা
হল কোটি মৃত্যুর শিকার,
কোটি আজদাহা—লােভ-কুণ্ডলীতে ক্ষয়মান দিগন্ত-কিনার
লীলাভূমি হ’ল জালিমের।

দিন শেষ হ’ল আমাদের।

দিকে দিকে শয়তানের অনুচর সেই জালিমেরা
তুলে দিল বেড়া,

কুল মখলুক আজ সর্পবাস হ’ল জালিমের
দিন শেষ হ’ল আমাদের।
আমাদের ক্ষুধাতুর শবের পর্বতে
অত্যাচার করে গেলে নিশ্চিতে-বিলাসে
আমাদের ভবিষ্যৎ কালাে-সিয়া অন্ধকারে শেষ হয়ে আসে
ক্ষুধাহীন হাড় ভাসে পথে।

তােমাদের পরিচয় আজ হ’ল শেষ।
অসংখ্য, অশেষ
তােমরা সকলে এক তােমাদের এক মজহাব
হারাম নেশায় মত্ত ছুঁড়িতেছে বিষাক্ত শারাব
জনতার বুকে মৃত্যু বিষ,
ছড়াতেছ সমাজ পুরীষ,
সব জালিমের সাথে হানিতেছ সমান আঘাত,
মানুষের রক্ত শুষি আনিতেছ ভয়াবহ
অন্ধকার কালাে-সিয়া রাত।
দুর্বল, বিশীর্ণ এই জনতার বিশ্বাসের চরম সুযােগে
যতাে পারাে করাে অত্যাচার।
আজ শুধু ঘৃণা ছাড়া আমাদের আর
কোন শক্তি নাই এ দুর্যোগে।

আজ শুধু ঘৃণা ক’রে যাব তােমাদেরে।

দিগন্ত-প্রসারী এই ঘৃণার ধোঁয়াতে
তােমাদের ঘিরে ফেলে কোন এক প্রবঞ্চিত ক্ষুধিত প্রভাতে
মুহুর্তে মৃত্যুর মত প্রতিশােধ-লেলিহান ফাটিবে হাভিয়া
সব জালিমের আর সব জুলুমের বুকে এক সাথে চলিবে বহিয়া
শৃখল, শােষণ-ক্ষুব্ধ রুধিরাক্ত কলিজার উত্তপ্ত গরল।

সেই বিষে শেষ হবে, সে আঘাতে শেষ হবে
অভ্রভেদী অত্যাচার-তিক্ত হলাহল
এই উৎপীড়িত হাড়, বুভুক্ষু জিন্দিগী আর পাদপিষ্ট সিনা
আজ শুধু তােমাদেরে করে যাবে ঘৃণা
উত্তপ্ত লেলিহ ধােঁয়া বুকে তার উৎপীড়িত রাত্রি হবে ভোর
সে-আগুন জ্বালানাের
দুর্বার জেহাদে।
ঐ দেখ, সেই ঘৃণা, সেই ঘনায়িত ধোঁয়া
সে লেলিহ মানবতা ক্ষুধাতুর বিষাক্ত প্রভাবে
মাথা তােলে জুলুমের ফাঁদে।।