মিছিল ১

চতুর্দিকে মানুষ এখন খেপে গেছে,
যখন তখন সবাই তারা মিছিল করে।
বিনা দ্বিধায় রক্ত ঢালে পিচের পথে
মৃত্যু দিতে এতটুকু প্রাণ কাপে না।

তবু কেন বাগান জুড়ে ফুল ফোটে না?
বুকের কাছে সাপের ফণা থমকে থাকে।
তবু কেন দেশটা ঘিরে বাঁদর নাচে?
ধিন ধিনা ধিন গদির নেশায় শিয়াল নাচে;
ধূর্ত শিয়াল, মাতাল শিয়াল, লােভে মত্ত বন্য শিয়াল
ধরতে গেলে ফসকে যায় –
হায়রে বাঁদর, মূর্খ বাঁদর
কলায় পােবা বেভুল বাঁদর নিরবধি তেল মাখে তাই,
ধরতে গেলে শিয়ালবাবুর তেলের শরীর ফসকে যায়-

মধ্যি থেকে মানুষগুলাে ক্ষুধায় মরে
মধ্যি থেকে মানুষগুলাে বঞ্চিত হয় প্রাপ্য থেকে।

তাই তাে এমন খাঁ খাঁ করে শুকনাে জীবন
তাই তাে এমন হু হু করে শূন্য হৃদয়।
বাগান জুড়ে ক্রিসেনথিমাম আর ফোটে না
আকাশ ভরে পায়রাগুলাে আর ওড়ে না।

রাত্রি এলে মেঘের ফাঁকে চাদ হাসে না।
যখন তখন মানুষ কেবল মিছিল করে,
দিন রাত্রি মানুষ শুধু

নতুন দিনের স্বপ্ন দ্যাখে,
সুখের শােভন স্বপ্ন দ্যাখে।

(গ্রন্থঃ শিকড়ে বিপুল ক্ষুধা)