নাইয়া! ধীরে চালাও তরণী

নাইয়া! ধীরে চালাও তরণী।
একে ভরা ভাদর তায় বালা মাতোয়ালা, মেঘলা রজনী॥
হায়, পারে নেওয়ার ছলে নিলে মাঝ নদীতে
যৌবন-নদী টলমল নারি রোধিতে
ঐ ব্যাকুল বাতাস হরি’ নিল লাজ বাস
তায় চঞ্চল-চিত যে তুমি চাহ বধিতে।
পায়ে ধরি ছাড়, বঁধু আমি পরের ঘরের ঘরণী॥

তরঙ্গ ঘোর রঙ্গ করে, অঙ্গে লাগে দোল
একি এ নেশার ঘোরে তনু মন আঁখি লোল্
দুলিছে নদী দুলে বায়ু দুলিছে তরী
কেমনে থির রাখি মোর চিত উতরোল।
ওঠে ডিঙি পানসী ভরি বারি
কি করি কিশোরী রমণী॥