কার নিকুঞ্জে রাত কাটায়ে আস্লে প্রাতে পুষ্প-চোর

কার নিকুঞ্জে রাত কাটায়ে
আস্লে প্রাতে পুষ্পচোর।
ডাকছে পাখী ‘বৌ গো জাগো,
আর ঘুমায়ো না, রাত্রি ভোর’॥

জুঁই-কুঁড়িরা চোখ মেলে চায়,
চুম্কুড়ি দেয় মৌমাছি।
শাপ্লা-বনে চাঁদ ডুবে যায়
ম্লান চোখে হায় চায় চকোর॥

ঘোম্টা ঠেলি কয় চামেলি,
গোল করো না গুল্-ডাকাত,
ঢুলছে নয়ন, দুলছে গলায়
বেল-টগরের ছিন্ন ডোর॥

বোরকা খুলি বন-কেতকীর
ফুলরেণুতে রাঙলে গা,
পারুল-বধূর মাগলে মধু,
হাস্নাহেনার ভাঙলে দোর॥

গায় কাওয়ালি বাদলি রুম্ঝুম,
তয়্ফাওয়ালি নাচে মউর্
ঝুরছে কদম, মেঘ-তমালে
বিজলি-চোখে চায় কিশোর॥

শোন্ রে কবি পুষ্পলোভী
আজ ধরেছি ফুল চুরি,
হুল ফটিয়ে, ফুল্বালাদের
কুল ভুলানো ভাঙবে তোর॥

[গারা-ভৈরবী—কাহার্বা]