নির্বাসন ৩

আর কত ফাঁকি দেবে, আমি কি বুঝি না ভাবাে চাতুরি তােমার?
ভেতরে নরক রেখে কেমন বাহানা ধরাে সুবােধ শিশুর!
চুম্বনের স্বাদ দিলে বিষাক্ত সাপের মতাে ছােবলের ঘায়ে,
মুখােশ খুলেই দেখি আসলে তােমার এক বীভৎস আদল।

আর কত প্রতারণা, ভাঙনের নৃশংস খেলা এতটা নির্মম!
পুন্নিমাবিহীন চাঁদ অশুভ অমাবস্যাকে ডাকে আয় আয়—
জোনাকিকে জোস্না ভেবে নিকষ আন্ধার রাতে উৎসবে মেতেছি।
এই তাে আমার ভুল, এই তাে আমার পাপজালেতে জড়ানাে,
এখন ছুটতে চাই, দু’দাঁতে কামড়ে চাই ছিড়তে বাঁধন,
এখন বাঁচতে চাই, প্রাণপণে পেতে চাই বিশুদ্ধ বাতাস।

আর কত ফাঁকি দেবে, আমি কি বুঝি না ভাবাে চাতুরি তােমার?
জীবনে জঞ্জাল রেখে সুবাসিত হাসি টানাে ঠোটের কিনারে।
গ্লানিতে অতীত ভরা, গ্লানিতে শরীর ভরা ঘৃণার জীবন।
অমৃতের মতাে ভেবে তবুও ছুঁয়েছি আমি বিষের অনল—
এই কি আমার প্রেম? সাজানাে গােছানাে সাধ, সাধনার ধন?

এই তাে আমার ঘর, মাটি নেই, খুঁটি নেই, অলীক মহল,
নিশ্চিত মরণ থেকে এবার বাঁচতে চাই, শুভ্র মুক্তি চাই,
সুচারু স্বপ্নকে চাই, অমল ধবল চাই হৃদয়ের ঘ্রাণ।

(গ্রন্থঃ শিকড়ে বিপুল ক্ষুধা)